বাংলাদেশ, , মঙ্গলবার, ১১ আগস্ট ২০২০

অবশেষে পটিয়া থানা থেকে পালিয়ে যাওয়া সেই কথিত নারী সাংবাদিক গ্রেপ্তার

প্রকাশ: ২০২০-০৭-২২ ১৫:৩৪:৫৫ || আপডেট: ২০২০-০৭-২২ ১৫:৩৪:৫৫

নিজস্ব প্রতিবেদক::
দীর্ঘ ৫ মাস ২০ দিন পর চট্টগ্রামের পটিয়া থানা থেকে পালিয়ে যাওয়া আলোচিত মাদক সম্রাজ্ঞী কথিত সাংবাদিক মোছাম্মৎ লাইজুকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। রাজধানীর সাভার থানায় গ্রেপ্তার হওয়ার পর শোন এরেস্ট দেখিয়ে মঙ্গলবার (২১ জুলাই) দুপুরে পটিয়া থানা পুলিশ ৩ দিনের রিমান্ডে আনেন।

২০২০ সালের ৩১ জানুয়ারি চট্টগ্রাম-কক্সবাজার আরকান মহাসড়ক হয়ে কথিত সাংবাদিক লাইজু ইয়াবার একটি চালান নিয়ে গন্তব্যে যাচ্ছিল। পটিয়া থানা পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে লাইজুকে গ্রেপ্তার করে। ওই সময় ১৯শ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। পরের দিন ভোরে থানা হেফাজত থেকে পালিয়ে যায়। দীর্ঘ ৫ মাস ২০ দিন পর সাভার থানা পুলিশ গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়।

পটিয়া থানা পুলিশ জানান, মাদক সম্রাজ্ঞী লাইজু প্রায় সময় কক্সবাজার থেকে ইয়াবা নিয়ে দেশের বিভিন্ন এলাকায় পাচার করে থাকে। পটিয়ায় ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার হওয়ার পর লাইজু ‘আমাদের নতুন সময় পত্রিকার স্টাফ রিপোর্টার’ হিসেবে পরিচয় দেন। ইয়াবা উদ্ধারের ঘটনায় পটিয়া থানায় একটি মামলা রেকর্ড করলেও লাইজু থানা হাজত থেকে পালিয়ে যায়।

পালিয়ে যাওয়ার ঘটনায় আরো একটি মামলা হয়। দায়িত্ব অবহেলার কারণে পটিয়া থাানার এএসআই শামসুদ্দিন ভুঁইয়া, কনস্টেবল মো. রিয়াজ ও মহিলা কনস্টেবল মোছাম্মৎ মমতাজকে ক্লোজ করা হয়। পরবর্তীতে মাদক সম্রাজ্ঞী লাইজুকে পুনরায় গ্রেপ্তার করতে পুলিশ অভিযান চালায়। কিন্তু গ্রেপ্তার করতে পারেনি। ২০২০ সালের ৯ মে সাভার থানা পুলিশ লাইজুকে মাদক আইনের একটি মামলায় গ্রেপ্তার করেন। পটিয়া থানার উপ-পরিদর্শক হিরো বিকাশ লাইজুকে চট্টগ্রাম কারাগার থেকে শোন এরেস্ট দেখিয়ে মঙ্গলবার (২১ জুলাই) থানায় আনেন।

পটিয়া থানার ওসি বোরহান উদ্দিন জানিয়েছেন, লাইজু থানা থেকে পালিয়ে যাওয়ার পর প্রায় সময় কক্সবাজার থেকে ইয়াবা নিয়ে যেত। তাকে গ্রেপ্তার করতে বিভিন্ন এলাকায় অভিযানও করা হয়েছে। সে বিভিন্ন সময় আনোয়ারা, বাঁশখালী হয়ে কক্সবাজারে যেত। পুলিশের নজরদারি থাকার কারণে সে ধরা পড়েছে।

ক্যালেন্ডার এবং আর্কাইভ

SunMonTueWedThuFriSat
      1
2345678
9101112131415
16171819202122
23242526272829
3031     
   1234
19202122232425
262728293031 
       
293031    
       
      1
2345678
9101112131415
16171819202122
       
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
293031    
       
     12
3456789
10111213141516
17181920212223
24252627282930
31      
   1234
567891011
12131415161718
19202122232425
262728293031